২৩ বছর ধরে গৃহবন্দি এই দুই বোন২৩ বছর ধরে গৃহবন্দি এই দুই বোন – বিডি রাইট
শিরোনামঃ
সংসদ সদস্য বানানোর আশ্বাস দিয়ে নায়িকা পপিকে বিয়ের প্রস্তাব ইসলামের প্রতি মনোযোগী হচ্ছেন কুদ্দুস বয়াতি, ওয়াদা করেছেন দাড়ি রাখবেন বিমানে চট্টগ্রাম গিয়ে সড়কের প্রশংসা করলেন নায়ক রিয়াজ মা-বাবা বেঁচে নেই, ১০ বছরের ভাইয়ের দায়িত্ব না নিয়ে ট্রেনে তুলে দিলেন ভাই-ভাবি বিচার না পেয়ে ছোট দুই বোনকে নিয়ে আমরণ অনশনে রুবি! বিয়ের চার মাস না যেতেই সম্পর্কে ফাটল, স্বামী রোহানের প্রেমিকাকে নেহার হুমকি মমতাকে ছাড়তে পারব না আমি: কৌশানী বাঘে খাওয়া বাকি দু’জনের দেহ পাওয়া যায়নি, জীবিত ফিরে এলেন মুসা অভিনেত্রী-মডেলদের সঙ্গে হোটেলে রাত কাটাত হেলিকপ্টার রুবেল একই মেয়েকে ভালোবাসেন চাচা-ভাতিজা, মুখোমুখি ডিপজল-জয়
২৩ বছর ধরে গৃহবন্দি এই দুই বোন

২৩ বছর ধরে গৃহবন্দি এই দুই বোন

রতে ভালোবাসে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভা’র। কেউ একটু বেশি ঘুরতে ভালোবাসে আবার কেউ একটু কম। এটা স্বাভাবিক কথা। তবে এমনো মানুষ আছে যারা জন্ম থেকে কোনো দিন বাড়ি থেকে বের হয়নি। শুনতে একটু অ’বাক লাগলেও এটা সত্যি, যে ভা’রতে রাকশি এবং সোনাম নামে দুই বোন আছে, যারা কোথাও ঘুরতে যায় নি।

 

তারা এক মু’সলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করছে। তাদের বয়স ২৮ এবং ২৫ বছর। তবে এত বছর বয়সেও তারা কখনো কোথাও ঘুরতে যায় নি। ভা’রতের বাসিন্দা হয়ে তারা দিল্লিতেও ঘুরতে যায় নি পর্যন্ত। তবে তাদের অনেক ইচ্ছা ঘুরতে যাওয়ার। সাজগোজ করতেও তারা অনেক পছন্দ করে।

 

সোনাম জানায়, আইলাইনার, মাশকারা, আইশ্যাডো দিয়ে সাজতে ভালোবাসে তারা। সোনাম নিজে মেকআপ করে আবার রাকশিকেও সাজিয়ে দেয়। তারা বিভিন্ন রঙের চুড়ি পরতে ভালোবাসে। তাছাড়া তাদের ভেতর আরও অনেক গুণ রয়েছে। রাকশি এবং সোনাম ভালো গান করে।

 

কথায় বলে, ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়। তবে তাদের বেলায় তা হয় নি। কারণ রাকশি এবং সোনাম হাঁটতে পারে না। বাবা-মাই তাদের এক মাত্র ভরসা। এজন্য লেখাপড়াও করতে পারেনি তারা। তারপরও হাসি-খুশি দুই বোন। তাদের মতে, যতদিন বেঁচে থাকবে, এভাবেই হাসি-খুশি থাকতে চান।

 

রাকশি এবং সোনাম বলেন, তাদের একটা স্বপ্ন, তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চান এবং তার সঙ্গে হাত মিলাতে চায়। রাকশি এবং সোনাম পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে এবং কোরআন তেলাওয়াত করেন তাদের মায়ের সঙ্গে। এমন অস্বাভাবিক শরীর নিয়ে তারা জন্মেছে। যার কারণে তারা কারো সাহায্য ছাড়া হাঁটাচলা পর্যন্ত করতে পারে না। এমনকি বাথরুমে যাওয়ার সময়ও তাদের সঙ্গে কাউকে না কাউকে থাকতে হয়। এদের মধ্যে একজন তো ঠিকভাবে উঠে বসতেও পারে না। তবুও তাদের মধ্যে দারুণ ভালোবাসা।

খবরটি শেয়ার করুন





© ২০২০ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme